দৌলতপুর প্রতিনিধি: কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার আড়ীয়া ইউনিয়নের বড়গাংদিয়া বাজারে অবস্থিত পুরাতন ভবনের চারপাশে মাদকের হাট গড়ে উঠেছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

এ বিষয়ে নাম পরিচয় গোপন রাখার শর্তে একাধিক এলাকাবাসীর বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের পুরাতন ভবন দীর্ঘ দিন যাবত তালা বদ্ধ অবস্থায় পড়ে ছিল। এবং ইউনিয়ন পরিষদের লোকজন পরিচর্যা করতো যেন ভবনগুলো নষ্ট হয়ে না যায়।
হঠাৎ দেখছি স্থানীয় শিহাব নামে এক ব্যক্তি ভবন ব্যবহার করছে। এবং ভবনের আশপাশে মাদক সেবনের আড্ডা বসে। একরকম মাদকের হাটে পরিনত হয়েছে। আমরা চাই ইউনিয়ন পরিষদের ভবন পরিষদের কাজে ব্যবহৃত হোক।কোন ব্যক্তির কাজে নই।

ইউনিয়ন পরিষদের ভবন ব্যবহারের বিষয়ে শিহাবুল ইসলাম শিহাবের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন আমাকে ভবন ব্যবহারের জন্য দিয়েছে তাই ব্যবহার করি। তবে ভবনের চারপাশে ফেনসিডিলের বোতল কেন এবং সেবনের স্থান মনে হচ্ছে কেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমি ও দেখছি তাই। তবে অল্প দিনের ভিতরে সিসি ক্যামেরায় স্থাপন করবো চারিদিকে। যেন কেউ মাদক সেবন না করতে পারে।

এ বিষয়ে চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন বলেন দলীয় কারণে আমি শিহাবকে ভবনটি ব্যবহার করতে দিয়েছি। তবে মাদক সেবনের বিষয়টি আমার জানা নাই। এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটে থাকলে আমি ব্যবস্থা নিবো। ইউনিয়ন পরিষদের ভবন কোন ব্যক্তিকে ব্যবহার করতে দেওয়া যায় কিনা আইনে? এমন প্রশ্ন উত্তরে চেয়ারম্যান বলেন বিষয়টা আমার জানা নাই তবে নিয়মে না থাকলে আমি আর ব্যবহার করতে দিব না ।

এ বিষয়ে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওবায়দুল্লাহ বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের ভবন কোনভাবে কোন সাধারণ মানুষ ব্যবহার করতে পারেনা। মাদক সেবনের বিষয়টি উল্লেখ করলে তিনি বলেন , এ সকল বিষয়ে আমার জানা ছিল না বিষয়টি আমি চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলে দেখবো।