এনামুল মবিন(সবুজ):দিনাজপুর পার্বতীপুর উপজেলার বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি প্রায় দুই মাস বন্ধ থাকার পর আবারো কয়লা উত্তোলন শুরু হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার ২৫ এপ্রিল সকাল থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু হয়।

জানা যায়, চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ১৩০৬ ফেস থেকে ৫ লাখ ৫০ হাজার টন কয়লা উত্তোলনের পর কয়লা উত্তোলন বন্ধ হয়ে যায়। ওই সময় খনি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল- খনির কয়লা উত্তোলন বন্ধ একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া তবে নতুন ফেস উন্নয়নপূর্বক কয়লা উত্তোলন শুরু করতে চলতি বছরের মে মাসের মাঝামাঝি সময় লেগে যাবে।

বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএমসিএল) মহাব্যবস্থাপক (জিএম-মাইন অপারেশন) খান মোঃ জাফর সাদিক বলেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ১১১৩ ফেস থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু হয়েছে। প্রথম দিকে পরীক্ষামূলকভাবে প্রতিদিন দেড় হাজার থেকে দুই হাজার টন কয়লা উত্তোলন হবে। পরবর্তী সময়ে প্রতিদিন তিন হাজার থেকে সাড়ে তিন হাজার টন করে কয়লা উত্তোলন হবে। ১১১৩ ফেসটির রোডওয়ে উন্নয়ন কাজ ২০২২ সালের জুলাই মাসে শুরু হয়। ওই সময় খনি ভূগর্ভের রোডওয়ে উন্নয়নকালে বেল্ট গেট এবং ওপেন অব কাট রোডওয়েতে অনাকাঙিক্ষতভাবে পরপর দুটি বড় ধরনের রুফ ফল সংঘটিত হওয়ায় বিসিএমসিএল ও চীনা কনসোর্টিয়াম ১১১৩ ফেস তথা খনির সার্বিক নিরাপত্তার বিষয় বিবেচনা করে। পরে পূর্বের ডিজাইন পরিবর্তন করে প্রায় ৯০ মিটার দৈর্ঘ্যের নতুন ওপেন অব কাট নির্মাণ কাজ শুরু করে। রুফ ফল এর কারণে নতুন ওপেন অব কাট নির্মাণ কাজের জন্য উক্ত ফেস থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু করার পরিকল্পনা অনুযায়ী চলতি বছরের মে মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে পিছিয়ে জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে কয়লা উত্তোলনের সময় নির্ধারণ করা হয়।

আসন্ন এসএসসি পরীক্ষা ও গ্রীষ্মকালে দেশের উত্তরাঞ্চলে বিদ্যুৎ চাহিদা নিরসনে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ উৎপাদনে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে জ্বালানি হিসেবে কয়লা সরবরাহের লক্ষ্যে পেট্রোবাংলা এবং বিসিএমসিএল পরিচালনা পর্ষদের দিকনির্দেশনায় বিসিএমসিএল’র সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, চীনা কনসোর্টিয়ামের কর্মকর্তাবৃন্দ ও স্থানীয় শ্রমিকদের প্রচেষ্টায় ১১১৩ ফেসে নতুন করে ওপেন আব কাট নির্মাণ, ১৩০৬ ফেস থেকে সকল ইকুইপমেন্ট স্যালভেজ ও যথাযথ মেইনটেন্যান্স করে ১১১৩ ফেসে স্থাপন শেষে নির্ধারিত সময়ের আগেই আগেই এ ফেস থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু করা সম্ভব হয়েছে।

বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএমসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোঃ সাইফুল ইসলাম সরকার বলেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ১১১৩ ফেস থেকে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৬টার শিফট থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু হয়েছে। খনির নতুন ১১১৩ ফেসের কয়লা উত্তোলন লক্ষ্যমাত্রা ৩ লাখ টন এবং উক্ত ফেস থেকে চলতি বছরের আগস্ট মাস পর্যন্ত কয়লা উত্তোলন করা সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে। উত্তোলিত কয়লা নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যে বড়পুকুরিয়া কয়লাভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে সরবরাহ করা হবে। এই ফেস থেকে আনুমানিক চার মাস কয়লা উত্তোলন করা যাবে।