কুষ্টিয়ায় সন্তান হত‌্যার দা‌য়ে মা‌য়ের যাবজ্জীবন!

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আমিন হাসান
  • আপডেটের সময়। রবিবার, ৮ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৬৯ টাইম ভিউ

ভাতের সাথে বিষ মিশিয়ে খাওয়ানো হয়েছিল ৫ বছরের শিশুকে কুষ্টিয়ার খোকসায় প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে ৫ বছর বয়সী ছেলে শাহিনকে ভাতের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাইয়ে হত্যার দায়ে নাছিমা খাতুন (৩৫) নামের এক সৎমাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত।

একই সঙ্গে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

আজ রবিবার দুপুর ১টার দিকে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-১ এর বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এই রায় দেন।

রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। পরে তাকে পুলিশ পাহারায় জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।কুষ্টিয়া জজ আদালতের পিপি অ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত নাছিমা বেগম কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার চর ভাবনিপুর গ্রামের উন্তার মৃধার মেয়ে। খোকসা উপজেলার আমবাড়ীয়া গ্রামের বাদশা প্রামাণিকের দ্বিতীয় স্ত্রী।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালের ২০ সেপ্টেম্বর দুপুরে ঈদ উপলক্ষে জামা কেনার জন্য দুই সন্তানকে বাদশার বাড়ি দিয়ে যায় শ্বশুর। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে দুপুরের খাবার খাওয়ার সময় ছোট ছেলে শাহিনকে ভাতের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে দেয় শাহিনের সৎ মা নাছিমা বেগম।

খাবার খেয়ে শাহিন অসুস্থ হলে হাসপাতালে নেওয়া হয় এবং চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুটি মারা যায়। এই ঘটনার পরের দিন নাছিমার স্বামী খোকসা উপজেলার আমবাড়ীয়া গ্রামের হাচেন প্রামাণিকের ছেলে বাদশা বাদী হয়ে খোকসা থানা একটি মামলা দায়ের করেন।মামলায় গ্রেপ্তারের পর পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে নাছিমা সৎ ছেলে শাহিনকে হত্যার কথা স্বীকার করেন। এবং ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দি দেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে আজ রবিবার এই মামলার রায় ঘোষণা করেন আদালত।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর