পাটীকাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের এখন দূর্নীতির আখড়া ! উদ্বোধনের ৭ দিনের মধ্যেই রাস্তার বেহাল দশা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপডেটের সময়। সোমবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৭৪ টাইম ভিউ

নিজ সংবাদ ।। রাস্তা উদ্বোধনের এক সপ্তাহের মধ্যে চলাচলের অযোগ্য । এলকাবাসীর দাবী মেম্বার এবং চেয়াম্যানের দূর্নীতির কারনেই নব নির্মিত রাস্তার এমন করুন দশা ।

কুষ্টিয়া সদরের ৮ নং পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের দুই নাম্বার ওয়ার্ডে এলজিএসপি’র কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে । ডাবিরাভিটা হকের বাড়ী থেকে মান্নতের বাড়ী অভিমুখে ১০৬ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৮ ফুট প্রস্থ বিশিষ্ট সিসি ঢালাই রাস্তার জন্য ২০২২-২০২৩ অর্থ বছরের এলজিএসপি-৩ (বিজিবি) প্রকল্পের অধীনে বরাদ্দ দেওয়া হয় এক লক্ষ চুরাশি হাজার পাঁচ শত একান্ন টাকায় ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গত সপ্তাহে পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ রেজভি উজ্জামান কানু রাস্তাটি উদ্ভোধন করেন । রাস্তাটি উদ্বোধনের এক সপ্তাহের মধ্যে ভেঙ্গে গেছে । সিসি ঢালাই এ কোন রড ব্যবহার করা হয়নি । উদ্বোধনের এক সপ্তাহের মধ্যে রাস্তাটি চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে । যা নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে চলছে ক্ষোভ ।

এই বিষয়ে একাধিক এলাকাবাসী জানান, দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর এই রাস্তাটির নির্মান কাজ শেষ হয়েছে । কিন্তু রাস্তা নির্মানে চেয়ারম্যান শেখ রেজভি উজ্জামান কানু এবং মেম্বার মোঃ হাবিবুর রহমান বকুলের অনিয়মের কারণে এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই রাস্তাটি ভেঙ্গে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে ।

এলাকাবাসী আরো জানান, রাস্তাটির সিসি ঢালাইয়ে কোর রড ব্যবহার করা হয়নি । মেম্বার হাবিবুর রহমান বকুল রাস্তার কাজে জন্য ক্রয়কৃত সিমেন্ট রাস্তার কাজে ব্যবহার না করে নিজের ব্যাক্তিগত কাজ করার উদ্দেশ্যে নিজ বাড়ীতে নিয়ে গেছেন ।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ের দুই নং ওয়ার্ডের মেম্বার হাবিবুর রহমান বকুল বলেন, রাস্তা করার দুই দিনও তারা (এলাকাবাসী) শুকাতে দেইনি । নিষেধ করলেও এলাকাবসী কথা শোনেনি । বাঁশ বেঁধে দিয়েও কাজ হয়নি । তারপরও আমি ডেকে তাদের বলে দিয়েছি, আমার সিমেন্ট মিমেন্ট সবই আছে, দুইটা তিনটা লেবার নিয়ে আমি কাজটা পুনরায়
আবার ঠিক কবে দিবো ।

সিসি ঢালাইয়ে রড ব্যবহার করা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে মেম্বার হাবিবুর রহমান বকুল বলেন, এটা জনগণের টাকা নাকি সরকারী টাকা, এরম কোন লিখিত আছ নাকি দেকোতো । সিসি ঢালাই, খালি তোমরা শুনি ফোন দি এসব কতা বলা কন পাইচু । আপনি আমাক হেজে করার কে । আপনি কির সাংবাদিক । বাল ছিড়া সাংবাদিক হয়ই ।

রাস্তার কাজের বিষয়ে জানতে চাইলে চেয়ারম্যান শেখ রেজভি উজ্জামান কানু বলেন, আমার জানা নাই ঐটা কি অবস্থায় আছে । আমি নিজে গিয়ে দেখবো কি অবস্থায় আছে ।

এই বিষয়ে কুষ্টিয়া সদরের নির্বাহী কর্মকর্তা সাধন কুমার বিশ্বাস এর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি খোঁজ খবর নিয়ে দেখছি ।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর