শিরোনামঃ
ঘুড়ি প্রতীক নিয়ে লড়বেন অ্যাড. মুহাইমিনুর রহমান পলল কুষ্টিয়া দৌলতপুরে ২০ বোতল ফেনসিডিল ও পাখি ভ্যান সহ ১ জন আটক ইবি থিয়েটারের পথনাটক পরিবেশনা ইবিতে ওবিই কারিকুলাম প্রিপারেশন বিষয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত নিজ জেলা কুষ্টিয়াতে অভিনন্দন না পেয়ে আক্ষেপ করে যা বললেন সাফ চ্যাম্পিয়ন নীলা কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ডি বি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র গুলি সহ আটক-২ কুষ্টিয়ায় পর্নোগ্রাফি আইনে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর নামে নেত্রীর মামলা কুষ্টিয়ায় ছাত্রলীগ নেতা ও নেত্রীর পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন   কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সোহেল নামের এক যুবকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ৫৫ হাজার টাকা আত্মসাৎ কুষ্টিয়ায় সন্তান জন্ম দিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করলেন মা

কুষ্টিয়ায় এক বছরের ব্যবধানে আবারও নির্মাণাধীন দুর্গা প্রতিমা ভাংচুর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ রবিউল ইসলাম(হৃদয়)
  • আপডেটের সময়। সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ২০৮ টাইম ভিউ

মোঃ রবিউল ইসলাম হৃদয়ঃ কুষ্টিয়ায় নির্মাণাধীন দুর্গা প্রতিমা ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। কুষ্টিয়া পৌর ২১ নং ওয়ার্ডের লাহিনী কর্মকার পাড়ায় অবস্থিত লাহিনী সার্বজনীন পূজা মন্দিরে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে এলাকার এক যুবক সর্বপ্রথম ঘটনাটি দেখে বিষয়টি মন্দির কমিটিকে অবহিত করে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। তবে এ ঘটনায় বক্তব্য দিতে রাজি হয়নি পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, আসন্ন দুর্গোৎসবকে সামনে রেখে কুষ্টিয়া শহরের ২১ নং ওয়ার্ডের লাহিনী কর্মকার পাড়ায় লাহিনী সার্বজনীন পূজা মন্দিরে প্রতিমা তৈরির কাজ চলছিল। বিকাল আনুমানিক সাড়ে ৪টার দিকে এলাকার রাজ্জাক আলীর ছেলে সুজন আলী (২৭) সর্বপ্রথম ঘটনাটি দেখে পূজা মন্দির কমিটিকে বিষয়টি অবহিত করে। এরপর মন্দির কমিটির লোকজন এসে দেখতে পান মন্দিরে থাকা নির্মাণাধীন সবগুলো প্রতিমা ভাংচুর করা।

দূর্গা প্রতিমার মাথা ও হাত, সিংহের মুখ, লক্ষী প্রতিমার ঘাড়, স্বরস্বতী প্রতিমার মাথা, গনেশের প্রতিমার ঘাড়, কার্ত্তিক প্রতিমার ঘাড় এবং অসুরের ঘাড় ভাংগা রয়েছে। তবে কখন এগুলো ভাঙ্গা হয়েছে বা কে ভেঙেছে তা কেউ বলতে পারেনি। সংবাদ পেয়ে কুষ্টিয়া পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এদিকে এ ঘটনার পর এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

মন্দিরের সেবায়েত গৌরি বালা জানান, খবর পেয়ে সাড়ে ৪টার দিকে মন্দিরে যেয়ে দেখি সব ঠাকুরের মাথা কাটা। তখনি আমি চিৎকার দিয়ে উঠি। তখন আশে পাশের মানুষজন ছুটে আসে। সবার উদ্যোগে পাঁচ বছর আগ থেকে মন্দিরে দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এবারও তার প্রস্তুতি চলছিল।

লাহিনী সার্বজনীন পূজা মন্দির কমিটির সভাপতি ধনঞ্জয় নন্দী বলেন, কে বা কারা প্রতিমা ভাঙছে সেটা আমরা দেখি নাই। নিজেরাই সারারাত মন্দির পাহারা দেই। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে থাকা অবস্থায় জানতে পেরেছি ঘটনা। এ বিষয়ে সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি।
স্থানীয়রা জানায়, হিন্দু মুসলমান সকল সম্প্রদায়ের প্রচেষ্টায় বিগত ৫ বছর ধরে মন্দিরটিতে শান্তিপূর্ন ও আনন্দঘন পরিবেশে দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এখানে মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকজনও পূজাতে চাঁদা দেয়। তারা ঘটনার নিন্দা জানিয়ে দোষিদের গ্রেফতারের দাবি জানান।

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জয়দেব পাল বলেন, আমি মনে করি এই এলাকার মানুষ সম্প্রীতিতে বিশ^াস করে। তা না হলে এমন দুর্বৃত্তায়নের মতো ঘটনার সমবেদনা জানানোর জন্য এতো মানুষ ঘটনাস্থলে আসতো না। তিনি বলেন, গুটি কয়েক মানুষ যারা সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে চাই। যারা দেশের ভেতরে সাম্প্রদায়িকতার বীজ বপণ করে অস্থিরতা সৃষ্টি করতে চাই, তারাই প্রতি বছর এই ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে থাকে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি অবগত করেন।

এদিকে এ বছরও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হওয়ায় সনাতন ধর্মালম্বী ও সচেতন নাগরিকদের ভেতর মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। গত বছরের ২২ সেপ্টেম্বর (বুধবার) কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়ায় নির্মাণাধীন দুর্গাপূজার মন্ডপে প্রতিমা ভাংচুর করেছিল দুর্বৃত্তরা। সে সময় আসন্ন দুর্গোৎসবকে সামনে রেখে শহরের আড়ুয়াপাড়া রেললাইন সংলগ্ন হেমচন্দ্র লেনস্থ আইকা যুবসংঘের অস্থায়ী মন্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ চলছিল। তখন ঘটনার রহস্য উদঘাটন না করে বিষয়টিকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা দাবি করে ইতি টানে প্রশাসন। পরবর্তীতে পুলিশ কয়েকজন আটক করলেও অজানা কারণে তা সামনে আসেনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন বলেন, এই ধরনের ঘটনার সঠিক তদন্ত হওয়া দরকার। বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলে এড়িয়ে যাওয়ার কারণেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটছে বলে তারা মনে করেন।

ঘটনার বিষয়ে জানতে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার খাইরুল আলমের মুঠোফোনে বারবার ফোন দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর