শিরোনামঃ
ঘুড়ি প্রতীক নিয়ে লড়বেন অ্যাড. মুহাইমিনুর রহমান পলল কুষ্টিয়া দৌলতপুরে ২০ বোতল ফেনসিডিল ও পাখি ভ্যান সহ ১ জন আটক ইবি থিয়েটারের পথনাটক পরিবেশনা ইবিতে ওবিই কারিকুলাম প্রিপারেশন বিষয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত নিজ জেলা কুষ্টিয়াতে অভিনন্দন না পেয়ে আক্ষেপ করে যা বললেন সাফ চ্যাম্পিয়ন নীলা কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ডি বি পুলিশের অভিযানে অস্ত্র গুলি সহ আটক-২ কুষ্টিয়ায় পর্নোগ্রাফি আইনে ৬ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর নামে নেত্রীর মামলা কুষ্টিয়ায় ছাত্রলীগ নেতা ও নেত্রীর পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন   কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সোহেল নামের এক যুবকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ৫৫ হাজার টাকা আত্মসাৎ কুষ্টিয়ায় সন্তান জন্ম দিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করলেন মা

কুষ্টিয়ায় ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামির আত্মসমর্পণ

বার্তা সম্পাদকঃ রুমন ইসলাম
  • আপডেটের সময়। মঙ্গলবার, ২৩ আগস্ট, ২০২২
  • ৩২৮ টাইম ভিউ

কুষ্টিয়ার শহরে পরকীয়া সম্পর্কের জেরে ব্যবসায়ী আবুল কাশেমকে (৪৫) ছুরিকাঘাতে হত্যা মামলার ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি আজাদ হোসেন আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন।
সোমবার (২২ আগস্ট) আজাদ আত্মসমর্পণ করলে কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী।
আত্মসমর্পণকারী ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামি আজাদ হোসেন কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়া এলাকার দুই নম্বর মসজিদ গলি লেনের স্কুলের পিছনের মৃত জহির উদ্দিনের ছেলে।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব শত্রুতা ও পরকীয়া সম্পর্কের জেরে ২০১৪ সালের ১৪ আগস্ট রাত ৯টা ৪৫মিনিটের দিকে কুষ্টিয়া শহরের এনএস রোডের ফাস্টফুড ব্যবসায়ী আবুল কাশেমকে আসামিরা ছুরিকাঘাতে হত্যা করে। ফাস্টফুডের দোকান বন্ধ করে থানাপাড়ায় বাড়িতে ফেরার পথে কুতুবউদ্দিন লেনে পরিকল্পিত হত্যার শিকার হন আবুল কাশেম। নিহতের স্ত্রীর সাথে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামি আজাদ হোসেনের পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। এ ঘটনার পরেরদিন নিহতের ছেলে ইফতেখার আহম্মেদ নাঈম বাদি হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি মামলা করেন।
মামলার তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এরপর আদালত এ মামলায় সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে গত ২১ জুলাই আসামি আদাজকে ফাঁসি ও মিন্টুকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেন। সেই সঙ্গে দুজনকেই ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। রায় ঘোষণার সময় মিন্টু আদালতে উপস্থিত ছিলেন এবং আজাদ পলাতক ছিলেন। পলাতক আসামি আজাদ সোমবার আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।

আদালতের পিপি অনুপ কুমার নন্দী বলেন, ব্যবসায়ী কাশেম হত্যা মামলায় ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামি আজাদ আত্মসমর্পণ করেছেন। তাকে পুলিশ পাহারায় জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর