শিরোনামঃ
আন্তর্জাতিক পুরষ্কার প্রাপ্ত সংগঠক অ্যাড পলল ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটি কুষ্টিয়ার সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত কুষ্টিয়ার সেই আলোচিত কর্নেল হত্যা তিন বন্ধুকে যাবজ্জীবন ইবিতে ইনট্রোডিউসিং প্রিন্টমেকিং শীর্ষক কর্মশালা উদ্বোধন কুষ্টিয়ায় চ্যাম্পিয়নের বাড়িতে খাবার নেই, বাজার নিয়ে ছুটে গেলেন ইউএনও কুমারখালীতে সুতার কারখানায় আগুনে কোটি টাকার ক্ষতিসাধন কুষ্টিয়ায় কিশোর হত্যা মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামি র‍্যাবের হাতে গ্রেফতার কোরআনের পাখিদের নিয়ে শীতের পিঠা উৎসব পালন করলো ‘ভালোবাসার কুষ্টিয়া’ গ্রুপ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পাট বোঝাই ট্রাকে আগুন কুমারখালীতে সাংবাদিককে বিয়ে করায় উদ্যোক্তার চাকুরি খেলেন চেয়ারম্যান পাবনায় চাঞ্চল্যকর দস্যুতা ও ছিনতাইয়ের ঘটনা শিক্ষার্থী এবং অস্ত্রধারী দুই সন্ত্রাসী গ্রেফতার

পাহাড়পুরের জোড়া খুনের মামলার আসামী শিক্ষক মিলনকে বিদ্যালয় থেকে সাময়িক বরখাস্ত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ রবিউল ইসলাম হৃদয়।
  • আপডেটের সময়। বুধবার, ১৭ আগস্ট, ২০২২
  • ৩৭০ টাইম ভিউ

মোঃ রবিউল ইসলাম হৃদয়ঃ কুষ্টিয়ার কুমারখালি উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের পাহাড়পুর এলাকার আলোচিত মৃত চাঁদ আলীর ছেলে নেহেদ আলী (৫৫) ও বকুল আলী (৪৬) নামের দুই ভাই হত্যা মামলায় উত্তর মীরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ এনামুল হক মিলন আসামীভুক্ত হওয়ায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছেন বিদ্যালয় কতৃপক্ষ।

গত ৯ ই আগস্ট উত্তর মীরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক স্বাক্ষরিত করে একটি চিঠি প্রেরনের মাধ্যমে এই আদেশ দেন। শিক্ষক মানেই মানুষ গড়ার কারিগর। আর এই শিক্ষক দাড়ায় হত্যা হয়েছে আপন দুই ভাই। এমন ঘটনা সামনে আসায় বর্তমানে এলাকার সাধারন মানুষের মাঝে শিক্ষক নিয়ে বিভিন্ন কু মন্তব্য শুরু হয়েছে।

মামলা জানা যায়, ২০২০ সালের ৩১ মার্চ সন্ধ্যায় পাহাড়পুর গ্রামের মৃত চাঁদ আলীর ছেলে নেহেদ আলী (৫৫) ও বকুল আলী (৪৬)কে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনায় নিহত নেহেদ আলীর ছেলে নুর ইসলাম বাদী হয়ে একই গ্রামের খোকন মণ্ডল, পাপ্পু মণ্ডল, তরুন মণ্ডল, ভুট্টো শেখ, নাফিজ শেখ, টুটুল শেখ, সোহান মণ্ডল, আমিরুল, শিশির মণ্ডল, ইসতিয়াক আহম্মেদ, আলম মণ্ডল, মিলন বিশ্বাস, তুহিন শেখ, শাজাহান শেখ, খাদিমূল বিশ্বাস, তুফা শেখ, বজলু মণ্ডল, আলিম শেখ, মুন্তা বিশ্বাস, মজনু মণ্ডল, রাসেল শেখ, নাজমূল মণ্ডল, মাসুদ শেখ, জসীম শেখ, আত্তাব বিশ্বাস, গোপালপুর গ্রামের ফারুক, টুটুল ও মুকুলসহ অজ্ঞাত আরও ১০/১২ জনের নামে কুমারখালী থানায় মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং-১,তাং-০১/০৪/২০ইং।

মামলাটি পুলিশ তদন্তের পর চার্জশিটের সময় খোকন মণ্ডল, পাপ্পু মণ্ডল, তরুন মণ্ডল, ভুট্টো শেখ, নাফিজ শেখ, টুটুল শেখ, সোহান মণ্ডল, আমিরুল, শিশির মণ্ডল, ইসতিয়াক আহম্মেদ, আলম মণ্ডল, তুহিন শেখ, শাজাহান শেখ, তুফা শেখ, বজলু মণ্ডল, আলিম শেখ, মুস্তা বিশ্বাস, মজনু মণ্ডল, রাসেল শেখ, নাজমূল মণ্ডল, আত্তাব বিশ্বাস, গোপালপুরে গ্রামের ফারুক, টুটুল ও মুকুলকে মূল আসামি এবং তদন্তে আব্দুর রাজ্জাক ওরফে রজব, ফিরোজ মেম্বারকে আসামি করে মোট ২৭ জনের নামে আদালতে চার্জশীট প্রদান করে পুলিশ।

পরে মামলার বাদী নুর ইসলাম তার পিতার খুনের সাথে সরাসরি জড়িত আপন দুই ভাই স্কুল শিক্ষক মিলন ও খাদেমূল সহ মাসুদ ও জসীমকে বাদ দেওয়া হয়েছে এমন অভিযোগ করে আদালতে চার্জশিটের বিপক্ষে না রাজী প্রদান করলে আদালত মামলাটির তদন্ত সিআইডির উপর দায়িত্ব দেন।

দীর্ঘ দিন মামলাটি সিআইডি তদন্তের পর ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারী মাসের ২ তারিখে তদন্ত রিপোর্ট আদালতে প্রদান করেন। তদন্ত রিপোর্টে স্কুল শিক্ষক দুই ভাই মিলন ও খাদেমুলের নাম আবারো উঠে আসে। সিআইডির প্রতিবেদনে উল্লেখ রয়েছে আসামী মিলন তার হাতে থাকা ধারালো রামদা দিয়ে নিহত বকুলের ডান হাতের আঙ্গুল কেটে ফেলে এবং খাদেমুল তার হাতে থাকা ধারালো ছুরি দিয়ে নিহত বকুলের বাম হাতের বাহুর উপর কুপিয়েছে। বর্তমানে ওয়ারেন্টভুক্ত হয়েও এনামুল হক মিলন পালিয়ে বেরাচ্ছে।

উত্তর মীরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুল ইসলাম জানান, হত্যা মামলার আসামী হওয়ার কারনে এনামুল হক মিলনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এর আগেও একটি মামলায় সে আসামী ছিলো সেটার কিন্তু প্রমানিত না হওয়ায় বহাল ছিলো। তবে একের পর এক এরকম হত্যা মামলায় আসামী হওয়ার কারনে বিদ্যালয় কতৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মিজানুর রহমান মুসা জানান,পাহারপুরের জোড়া খুনের মামলায় সিআইডির চার্টশিটে এনামুক হক মিলন অভিযুক্ত হিসেবে আসামী হওয়ার কারনে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে৷ এছাড়াও সরকারি বিধিমালা হিসেবে কোন ফৌজদারি মামলার আসামী বিদ্যালয়ে চাকরীতে থাকতে পারবেনা। তাকে বরখাস্ত করা হবে এবং তার বেতনের অর্ধেক সে পাবে।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর