শিরোনামঃ
একটি অসম প্রেমের অকাল সমাপ্তি ছাত্রকে বিয়ে করা সেই শিক্ষিকা আত্মহত্যা করেছেন কুষ্টিয়া র‌্যাবের অভিযানে ২৮ বোতল ফেনসিডিল সহ ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কুষ্টিয়ায় ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট নাজমুলের হাতে ভুয়া এডিসি (ডিএমপি) ডিবি আটক ইবিতে ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে বিপুল পরিমাণ হেরোইন সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার আগামী ১৪ই আগষ্ট “প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে চিরঞ্জীব, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব” কর্মসূচির প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ইবির শেখ রাসেল হলে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল কুষ্টিয়ায় র‍্যাবের সেরা অভিযানে বিপুল পরিমাণ ফেনসিডিল ও গাঁজা সহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে বিপুল পরিমাণ ফেনসিডিল ও গাঁজা সহ ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। কুষ্টিয়ায় দুটি হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

রয়েল ডায়গনস্টিকে গুলিবিদ্ধ যুবকের ভূল অপারেশন: টাকার বিনিময়ে দফারফার চেষ্টা

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ মাহাফুজ হৃদয়।
  • আপডেটের সময়। বৃহস্পতিবার, ৪ আগস্ট, ২০২২
  • ২৭৬ টাইম ভিউ

মোঃ রবিউল ইসলাম হৃদয়ঃ কুষ্টিয়া শহরের কোর্টপাড়া র‍্যাব গলিতে অবস্থিত রয়েল ডায়গনস্টিক সেন্টার ও প্রাইভেট হাসপাতালে ইয়ার গানের গুলিতে আঘাতপ্রাপ্ত আসিফ (১৭) নামের এক যুবককে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে গোপনে ভর্তি করে দুইবার ভূল অপারেশন করে চিকিৎসা দেওয়ার অভিযোগে উঠেছে। বর্তমানে দুইবার ভূল অপারেশন করার পরও গুলি বের করতে না পারলে রোগীর অবস্থা আশংকাজনক হওয়ার কারনে রোগীর স্বজনদের সাথে টাকার বিনিময়ে দফারফা করে অন্য হাসপাতালে রেফার্ড করার চেষ্টা করছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

রোগীর পরিবার সুত্রে জানা যায়, গত রবিবার মেহেরপুর গাংনী থানাধীন মোহাম্মদপুর এলাকার আসাদুল ইসলামের ছেলে আসিফ (১৭) তার চাচাতো ভাই জনির ইয়ারগান নিয়ে সন্ধ্যার সময় কয়েকজন খেলা করার সময় বন্দুক থেকে দূর্ঘটনাভাবে গুলি বের হয়ে আসিফের পেটে লাগে। তাৎক্ষনিকভাবে আসিফের পরিবারের লোকজন তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে কুষ্টিয়াতে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে। কুষ্টিয়াতে আসার পর দূর্ঘটনাপ্রাপ্ত ইয়ার গানের মালিক জনি আসিফের চাচাতো ভাই পুলিশের ঝামেলায় না পরার জন্য আহত আসিফের পরিবারকে ভূলভাল বুঝিয়ে গোপনে রয়েল ডায়গনস্টিক সেন্টার ও প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে আসে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গোপনে কাউকে না জানিয়ে পুলিশের চোখ ফাঁকি ভর্তি করে নেন। পরে পেট থেকে গুলি বের করার জন্য দুইবার অপারেশন করেন ডাক্তার বদিউজ্জামান। দুই দুই বার অপারেশন করার পরেও তিনি কোন গুলি বের করতে পারেন নি। গত ৫ দিন ধরে ভর্তি রেখে দুইবার অপারেশন করে গুলি বের করতে না পেরে এবং রোগীর অবস্থা আশংকাজনক হলে রোগীর স্বজনদের সাথে টাকার বিনিময়ে দফারফা করে অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য বলে হাসপাতালের কতৃপক্ষ।

ভুক্তভোগী রোগীর পিতা বলেন, আমার ছেলের পেটে জনির ইয়ার গান থেকে গুলি লেগেছে। তারপর আমরা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় জনি আমাদের ভুলভাল বুঝিয়ে রয়েল ডায়গনস্টিক হাসপাতালে নিয়ে আসে। দুইবার অপারেশন করেছে তবুও গুলি বের করতে পারিনি। আমার ছেলের এখন খুব খারাপ অবস্থা তাই আমাদের অন্য হাসপাতালে ভর্তি করতে বলছে।

একাধিক সুত্রে জানা যায়, এই হাসপাতালের নিবন্ধনের মেয়াদ গত দের বছর আগেই শেষ হয়ে গেছে তবুও তাদের কার্যক্রম চলছে। তাদের কোন টেকনিশিয়ান নেই। এই হাসপাতালের মালিক রয়েছে শিপুল আলী, রঞ্জু, আরিফ,সহ আরও অনেকেই গ্রাম থেকে আসা সহজ সরল মানুষকে ভূল ভাল বুঝিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এর আগেও ভূল চিকিৎসা দিয়ে একাধিক দূর্ঘটনা ঘটেছে বলেও জানা গেছে৷

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর