শিরোনামঃ
ইবিতে গ্লোবাল সিটিজেনশিপ এন্ড সিভিক এডুকেশন শীর্ষক দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত। দেশের সর্ববৃহৎ ব্যাংকিং নেটওয়ার্ক গড়ার প্রত্যয়ে আইএফআইসি ব্যাংক বিভিন্ন আয়োজনের মধ্যে দিয়ে পালিত হলো ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় দিবস। জনবাণী পত্রিকায় কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ পেলেন সাংবাদিক হৃদয় কুষ্টিয়ায় ফুল বিক্রেতার গলা কাটা লাশ উদ্ধার ইবি’র ৪৩ বছর পূর্ণ হচ্ছে কাল প্রতারণার মাধ্যমে টাকা তুলে নেয়ায় দিশেহারা দরিদ্র শাজাহান কুষ্টিয়া হরিপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুই ভাইকে কুপিয়ে জখম : টাকা ও স্বর্ণালংকার ছিনতাই রবিউল হত্যা মামলায় চর মিলপাড়ার রনিকে চক্রান্ত করে ফাঁসানোর দাবি পরিবারের কুষ্টিয়ায় এসপি খাইরুল আলমের নির্দেশে ৬৭ টি চোরাই মোবাইল ও বিকাশ প্রতারনার টাকা উদ্ধার

কুষ্টিয়ায় নারীর লাশ উদ্ধার নিয়ে গুঞ্জন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেটের সময়। সোমবার, ১৬ মে, ২০২২
  • ১৯২ টাইম ভিউ

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের শিতলাইপাড়া চন্ডিপুরের সিরাজুল ইসলামের মেহেগুনি বাগান থেকে সোমবার গৃহকর্মী মঞ্জিরা খাতুনের (৩৫) লাশ উদ্ধার করেছে দৌলতপুর থানা পুলিশ।

জানা গেছে, রিফায়েতপুর ইউনিয়নের শিতলাইপাড়া গ্রামের মিনহাজের স্ত্রী মঞ্জিরা কাজ করতেন দৌলতপুর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ও ঠিকাদার ছাদেকুজ্জামান খান সুমনের মাস্টারপাড়ার বাসভবনে। থাকতেনও সেখানে।

বিষয়টিকে ওসি’র কাছে সুইসাইড মনে হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি। প্রশ্ন ছাড়াই অপ্রাসঙ্গিক উত্তর দেন, তার স্বামীকে একটু অসুস্থ মনে হয়েছে।

মেহেগুনি বাগানে ছোট্ট একটা শিশু গাছে শাড়িতে বেঁধে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে মুঞ্জিরার লাশ, এমন তথ্য দেন ওসি জাবীদ হাসান। আরও বলেন, বিষয়টি নিয়ে নানা জনে নানা কথা বলছেন, তা-ই সকালেই ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ পাঠিয়ে দিয়েছি।

এদিকে, সোমবার দৌলতপুর থানার ডিউটি অফিসার আবু জাফর বলেন, লাশ রশি দিয়ে গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় ছিলো, যদিও ওসি বলেছেন ভিন্ন কথা।

বিশেষ সুত্রে জানা গেছে, ১৫ মে রোববার মঞ্জিরা খাতুন মায়ের বাড়ি বেড়াতে যান। বিকালে খাওয়াদাওয়া করে রওয়ানা হোন সুমন খানের যে বাড়িতে কাজ করতেন, সেখানে। এরপর থেকেই নিখোঁজ মঞ্জিরা।

এ প্রসঙ্গে ছাদেকুজ্জামান খান সুমনের বক্তব্যের জন্য তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

সবচেয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দেন ঘটনার তদন্দ কর্মকর্তা প্রকাশ চন্দ্র। তিনি বলেন, কোথায় কাজ করতেন, আমিও অতটা চিনিনা। একটা কাপড় দিয়ে ঝুলন্ত ছিলো। কিন্তু সেটি শাড়ি নয়।

সকাল ১০টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও বিকাল চারটায় প্রতিবেদককে নিহতের পরিচয়, পেশা, বসবাস কিছুই বলতে পারেননি তিনি। জানিয়েছেন, নিহতের গায়ে শাড়ি পরা ছিলো। কিন্তু, ঘটনাস্থলে নিহত মুঞ্জিরার শরীর শাড়ীতে ঢাকা ছিলো না বলেই সুস্পষ্ট তথ্য রয়েছে।

এঘটনায় এলাকায় নানা গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে। আত্মহত্যা বলে পুলিশ দাবি করলেও লাশের প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, ঝুলন্ত লাশ দেখে মনে হয়নি এটা আত্মহত্যা। সঠিক তদন্ত করে সুষ্ঠু বিচার চাইছেন এলাকাবাসী।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর