শিরোনামঃ
কুষ্টিয়া ট্রাফিক অফিস বার্ষিক পরিদর্শন করলেন এসপি খাইরুল আলম সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ইবিতে অংশীজনদের সমন্বয় সভা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট থেকে ইবি হ্যান্ডবল দল ও বাস্কেটবল দলের (চ্যাম্পিয়ন) পদক গ্রহণ। ইবিতে গ্লোবাল সিটিজেনশিপ এন্ড সিভিক এডুকেশন শীর্ষক দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত। দেশের সর্ববৃহৎ ব্যাংকিং নেটওয়ার্ক গড়ার প্রত্যয়ে আইএফআইসি ব্যাংক বিভিন্ন আয়োজনের মধ্যে দিয়ে পালিত হলো ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় দিবস। জনবাণী পত্রিকায় কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ পেলেন সাংবাদিক হৃদয় কুষ্টিয়ায় ফুল বিক্রেতার গলা কাটা লাশ উদ্ধার ইবি’র ৪৩ বছর পূর্ণ হচ্ছে কাল প্রতারণার মাধ্যমে টাকা তুলে নেয়ায় দিশেহারা দরিদ্র শাজাহান

লালমনিরহাটে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর উপর হামলা, ৯৯৯-এ কল দিয়ে উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেটের সময়। মঙ্গলবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২২
  • ১২২ টাইম ভিউ

লালমনিরহাট। লালমনিরহাটে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর উপর হামলা ও জোরপূর্বক সম্পত্তি দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার (২৩ এপ্রিল) লালমনিরহাট সদর উপজেলার হারাটি ইউনিয়নের ঢাকনাই কুড়ারপাড় এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগার আলীর স্ত্রী জাহেদা বেগমের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে জোর পুর্বক সম্পত্তি দখলের চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত মোফাজ্জল হোসেন (৩০) আশরাফ আলী (৪৫) আশিক মিয়া (২৫) মোর্শেদা বেগম (৩৫) দীর্ঘ দিন থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগার আলী স্ত্রী জাহেদা বেগমের সম্পত্তি বেদখল করার চেষ্টা করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় অভিযুক্তরা হাতে ধারালো ছোরা, লাঠি সহ দলবদ্ধ ভাবে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে প্রবেশ করে বাড়িতে মারপিট শুরু করে এবং ১নং অভিযুক্ত মোফাজ্জল হোসেন মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর বুকে ছোরা ধরে ৩ টি নন জুডিসিয়াল স্টাম্পে সই করতে বলে এবং দুই লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে নিরুপায় হয়ে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী ফাঁকা স্টাম্পে সই করে শোকেজের ড্রয়ারে রাখা ৯০ হাজার টাকা অভিযুক্ত মোফাজ্জল হোসেনের হাতে প্রদান করে। এতে মোফাজ্জল আরো ক্ষিপ্ত হয়ে হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে জাহেদা বেগমের মাথায় ডাং মারে। এরপর ২ নং অভিযুক্ত আশরাফ আলী জাহেদা বেগমের ডান কাধে ডাং মারে এতে তার ডান কাধের হাড় ভেঙ্গে যায়। এসময় ৩ নং অভিযুক্ত আশিক মিয়া জাহেদা বেগমের গলা চিপে ধরে মাটিতে ফেলে দেয়। পরে ৪ নং অভিযুক্ত মোর্শেদা বেগম জাহেদা বেগমের কাপর টানা হেচড়া করে শ্লীলতাহানি ঘটায়।

জাহেদা বেগম নিজের জীবন বাঁচানোর জন্য ৯৯৯ এ কল করলে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এতে অভিযুক্তরা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশের সামনে ও মোবাইল ফোনে জাহেদা বেগমের ছেলে জহাঙ্গীর আলম বাবুকে মৃত্যুর হুমকী প্রদান করে।

মুক্তিযোদ্ধা আজগার আলীর স্ত্রী জাহেদা বেগম বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে থানায় অভিযোগ দিয়েছি। আমারা আসা করি উপযুক্ত বিচার পাবো।

অভিযুক্তদের সাথে মোবাইল ফোনে একাধিক বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও ব্যার্থ হয় এই প্রতিবেদক।

লালমনিরহাট সদর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি শাহ আলম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর