শিরোনামঃ
একটি অসম প্রেমের অকাল সমাপ্তি ছাত্রকে বিয়ে করা সেই শিক্ষিকা আত্মহত্যা করেছেন কুষ্টিয়া র‌্যাবের অভিযানে ২৮ বোতল ফেনসিডিল সহ ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কুষ্টিয়ায় ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট নাজমুলের হাতে ভুয়া এডিসি (ডিএমপি) ডিবি আটক ইবিতে ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে বিপুল পরিমাণ হেরোইন সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার আগামী ১৪ই আগষ্ট “প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে চিরঞ্জীব, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব” কর্মসূচির প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ইবির শেখ রাসেল হলে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল কুষ্টিয়ায় র‍্যাবের সেরা অভিযানে বিপুল পরিমাণ ফেনসিডিল ও গাঁজা সহ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে বিপুল পরিমাণ ফেনসিডিল ও গাঁজা সহ ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। কুষ্টিয়ায় দুটি হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়ায় র‍্যাবের অভিযানে ৪ দিন পর অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্র উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেটের সময়। বৃহস্পতিবার, ৩১ মার্চ, ২০২২
  • ২৩৯ টাইম ভিউ

মোঃ রবিউল ইসলাম হৃদয়, কুষ্টিয়া :
কুষ্টিয়ায় র‍্যাবের বিশেষ অভিযানে ৪ দিন পর অপহরন করে মুক্তিপন দাবিকৃত অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্র নাঈম (১৩) উদ্ধার হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর আনুমানিক দেড়টার সময় কুষ্টিয়া পোড়াদহ স্কুল মাঠের পাশ থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

র‍্যাব জানায়, কয়েকদিন ধরে স্কুল ছাত্র নাঈমকে অপহরন করে মুক্তিপন হিসেবে ১ লক্ষ টাকা দাবি করে আসছিলো অপহরনকারীরা। পরে নাঈমের মা থানায় সাধারন ডায়েরী করলে র‍্যাব কঠোরভাবে মাঠে নেমে উদ্ধার করে।

র‍্যাব-১২ কুষ্টিয়া ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার স্কোয়ান্ড্রন লিডার ইলিয়াস খান বলেন, মাদ্রাসা ছাত্র নাঈমকে অপহরন করে চাদা চাওয়া হচ্ছে এমন একটি অভিযোগ হাতে পেয়ে র‍্যাবের একটি চৌকস অভিযানিক দল মাঠে নামে। তাদের মোবাইল নাম্বার ট্রাকিং করার পর অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্র নাঈমকে উদ্ধার করা হয়েছে। র‍্যাবের অভিযান এখনো পর্যন্ত চলমান রয়েছে। এর সাথে জড়িত আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য: গত রবিবার বিকেলের পর থেকে নাঈমকে কোথাও খুঁজে না পেয়ে সোমবার কুষ্টিয়া মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তার মা নাছরিন খাতুন। কুষ্টিয়া শহরতলীর জুগিয়া মাঠপাড়া গ্রামের দিন মজুর মিল্টন শেখ ও নাছরিন খাতুন দম্পতির সন্তান মো. নাঈম (১৩)। সে পাশের জুগিয়া পালপাড়া এলাকার লাল মোহাম্মদ হাফেজিয়া মাদ্রাসার আবাসিক শিক্ষার্থী। নাঈমের মা নাছরিন খাতুন তিন বেলা বাড়ি থেকে মাদ্রাসায় গিয়ে নাঈমের জন্য খাবার দিয়ে আসেন। সর্বশেষ রবিবার বিকেলে পরিবারের সদস্যদের সাথে সর্বশেষ নাঈমের সাক্ষাৎ হয়। তারপর থেকে কয়েক দফা মোবাইলে ফোন করে পরিবারের সদস্যদের কাছে মুক্তিপণ বাবদ এক লাখ টাকা দাবি করেছে অপহরণকারীরা।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর